How to earn (make) money online bd payment bkash

How to earn (make) money online bd payment bkash.

আমার আজকের এই পোস্টটি শুধুমাত্র তাদের জন্য যারা নিজের পেশার পাশাপাশি অনলাইন ইনকাম করতে আগ্রহী। বিশেষ করে ছাত্র-ছাত্রীদের জন্য এবং যারা ছোট- চাকরি করেন। আমি জানি এক ছাত্র ছাত্রী যখন স্কুল-কলেজ পাড়ি দিয়ে ইউনিভার্সিটি লেভেলে ভর্তি হয়।

বেশিরভাগ মফস্বলের ছাত্র ছাত্রীদের যে অবস্থা থাকে, আমি সেই অবস্থার মধ্যে ছিলাম।

সে সময় থাকে না কোন আয় এর উপায় । ফ্যামিলি থেকে টাকা নিতে গেলেও পড়তে হয় নানান লজ্জায় ।

নিজেকে তখন অনেক ছোট মনে হয়।

এই ভেবে যে আমি একজন ইউনিভার্সিটির ছাত্র অথচ বাড়ি থেকে টাকা নিয়ে পড়ালেখা করি।

আমার আজকের এই টিউনটি উৎসর্গ করলাম তাদের যারা পড়াশুনা বা চাকরির পাশাপাশি অবসরসময়কে কাজে লাগিয়ে  পড়ালেখার পাশাপাশি অনলাইনে কাজ করে অথবা অন্যন্য কাজের পাশাপাশি টাকা ইনকাম করতে চান কিন্তু মাধ্যম খুজে পান না।

তো বন্ধুরা আপনি অনলাইনে আয় করতে চান বা না চান ,  আশা করি এই তথ্যগুলি আপনার জানা প্রয়োজন। এই আর্টিকেল এর প্রত্যেকটি প্যারাগ্রাফ-ই গুরুত্বপূর্ণ তাই কোন অংশ বাদ না দিয়ে সম্পূর্ণ পড়ার অনুরোধ রইল।

## ইউটিউবিং করে আয়

আপনিও চাইলেই কপি পেস্ট করে ইউটিউব ভিডিও বানিয়ে ইনকাম করা শুরু করতে পারেন। এই ভিডিও বানাতে আপনার ক্যামেরা বা ল্যাপটপ প্রয়োজন নেই। শুধু মোবাইল দিয়ে ভিডিও তৈরী করে ইনকাম করতে পারবেন।

ইউটুব এর প্রতি আপনার একান্ত আগ্রহ থাকলে নিচের পেজটি ভিজিট করে বিস্তারিত জানুন

কপি পেস্ট করে ইউটিউব ভিডিও বানিয়ে ইনকাম


Online income bd payment bkash – অনলাইনে টাকা ইনকাম করার উপায় – ৮

## শর্ট লিংক শেয়ার করে আয়

৬০ থেকে ৬৫ ভিজিটরের জন্য ১ ডলার, অর্থাৎ ১০০০০ হাজার ভিজিটর এর জন্য আপনি এই সাইট থেকে ১৬০ ডলার পযন্ত পাবেন। এটা অনেক ভালো কাজ এর রেট।

আপনি এখানে যত বেশি লিংক শেয়ার করবেন তত ভিজিটর পাওয়ার সম্ভাবনা বাড়বে তত বেশি ইনকাম হবে।

কিভাবে এখানে কাজ করবেন এবং পেমেন্ট প্রুফ সহ বিস্তারিত জানতে নিচের পেজটি ভিজিট করুন

শর্ট লিংক শেয়ার করে ইনকাম

## ফ্রিলান্সিং (Freelancing) করে আয়

অনলাইনে যে পদ্ধতিতে সবথেকে বেশি মানুষ রোজগার করে সেটি হলো ফ্রিলান্সিং। বাংলদেশের বেকারত্ব কমাতে এই খাতটি অনেক বড় ভুমিকা পালন করছে এবং সাথে সাথে অনেক দক্ষ মানুষ এই খাতে কাজ করে আমাদের দেশকে রিপ্রেসেন্ট করছে ।

এখন আসি কিভাবে শুরু করবেন এই কাজ। ফ্রিলান্সিং বলতে মুলত বিভিন্ন ধরনের কাজ যে কাজে আপনি দক্ষ সে কাজটি একটি নির্দিষ্ট পারিশ্রমিক এর বিনিময়ে করে দেয়া।

এখানে আপনার কাজ করার এবং আপনার যে ইমপ্লয়ার (Employer) তার নির্দিষ্ট কোনো জায়গা নাই। আপনি ঘরে বসেই আপনার কাজ সম্পাদন করতে পারবেন এবং আপনার ক্লায়েন্ট হবে বিভিন্ন দেশের। সময়ের সাথে সাথে পরিবর্তন হতে থাকবে।

যাহোক, সবার প্রথমে এখানে আপনার দরকার একটি নির্দিষ্ট বিষয় দক্ষতা।

এটা হতে পারে গ্রাফিক্স ডিজাইনিং (Graphics Design)

হতে পারে ফটো এডিটিং (Photo Editing)

হতে পারে ওয়েব ডিজাইনিং (Web Design)

ওয়েব সাইট মেকিং (Website Making)

কপি রাইটিং (Copywriting)

কন্টেন্ট রাইটিং (Content Writing)

লোগো ডিজাইন (Logo Design), ইত্যাদি।

এসবের যেকোনো একটি কাজে আপনি দক্ষতা অর্জন করতে পারলেই আপনি ফ্রিলাঞ্চিং করতে পারবেন।

আপনি যদি একাধিক কাজ পারেন সেক্ষেত্রে আপনার টাকা ইনকামের সুযোগ বেশি হয়ে যায়।

কাজ শেখার পর আপনাকে বিভিন্ন ফ্রিলান্সিং সাইটে (যেমন- Freelancer, Upwork, Fiver, ইত্যাদি)  আপনার তথ্য দিয়ে অ্যাকাউন্ট খুলতে হবে।

এর পরে আপনি কোন কোন কাজে পারদর্শী সেগুলো ওই সাইটে মেনশন করে দিতে হবে।

ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করুন

Leave a Comment